Skip to content

Connect Australia

Level 1/22-28 Edgeworth David Ave Hornsby NSW 2077 Australia

উভয় জগতের সেরা: পরিবার-বান্ধব জীবনধারায় কর্মজীবনের অগ্রগতি 

ইস্পাত উৎপাদন শিল্পে, একজন ঊর্ধ্বতন স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা পেশাদারী ব্যক্তি হিসেবে ফ্র্যান মোরেরা – তার জন্মভূমি[14] স্পেন থেকে নিয়ে  দুবাইয়ের কোলাহলপূর্ণ শহর পর্যন্ত, পৃথিবীর চারটি জাতির সাথে কাজ করেছেন। 

কিন্তু এটা ছিল অস্ট্রেলিয়ার কর্মক্ষেত্রের সংস্কৃতি এবং পরিবার বান্ধব জীবনধারা[15], যেখানে তিনি শেষ পর্যন্ত চিরস্থায়ী হয়েছেন, যে জায়গাতে তিনি বহু বছর ধরে নিজের স্থায়ী বাসস্থান করার ইচ্ছা পোষণ করেছেন। 

ফ্র্যান ব্যাখ্যা করে বলেন, আমি লোকজনদের অস্ট্রেলিয়াতে আসার জন্য উৎসাহিত করি, কারণ কর্মজীবনে অগ্রগতির জন্য এটা সত্যিই ভালো স্থান। যদি লোকেরা কঠোর পরিশ্রম করেন, অগ্রগতির পথ বিশাল।”

এখন মেলবোর্নে প্রতিষ্ঠিত, ইস্পাত তৈরির কোম্পানিতে ফ্র্যান হচ্ছেন নিরাপত্তা প্রধান, ৫০০০ এর অধিক  কর্মচারীর  মানসিক ও দৈহিক স্বাস্থ্যের দায়িত্ব তার ওপর। 

ফ্র্যান বলেন, “দক্ষ কর্মীদের[16] জন্য এখানে অনেক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে, বিশেষভাবে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা ক্ষেত্রে।”

যে পদে থেকে কাজ করার কারণে তাঁকে অনন্য দৃস্টিকোন হতে অস্ট্রেলিয়ার কর্ম-পরিবেশ দেখার সুযোগ দেয়, ফ্র্যান ঘোষণা করেন, কর্মক্ষেত্রের নিরাপত্তা বিষয়ে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বে নেতৃত্বস্থানীয়[17] এবং তিনি কর্মীদের এখানে কর্মজীবন গঠনের সুবিধাগুলো বিবেচনা করার জন্য উৎসাহিত করেন। 

ফ্র্যান ব্যাখ্যা করে বলেন, “পরিবার লালন-পালনের জন্য এটা একটা দারুণ জায়গা, এবং এখানে কাজ ও জীবনের মধ্যে সত্যিই ভালো ভারসাম্য রয়েছে। এটা[18] খুবই বৈচিত্র্যময় ও শ্রদ্ধাপূর্ণ। লোকজন বিভিন্ন ধরণের সংস্কৃতি ও ধর্মকে গ্রহণ করছে।”

পুরো পরিবার[19] নিয়ে মেলবোর্ণে স্থায়ী হওয়াটা ফ্র্যানের জন্য ছিল একটা স্বাগতপূর্ণ পরিবর্তন। তারা খোলা-বাতাসের জীবনধারা এবং ঘরের বাইরে খেলাধুলা অথবা সাইকেলে আরোহণ করা উপভোগ করেন। 

ফ্র্যান বলেন, “আমি আমার সন্তানদের জিজ্ঞেস করেছিলাম, কোথায় থাকতে তারা বেশি পছন্দ করে, তারা সবাই বলেছিলো অস্ট্রেলিয়া।“

আপনি যদি একজন দক্ষ কর্মী হয়ে থাকেন, তাহলে সঠিক সিদ্ধান্ত নিন এবং অস্ট্রেলিয়াকে বেছে নিন।

“পরিবার লালন-পালনের জন্য এটা একটা দারুণ জায়গা, এবং এখানে কাজ ও জীবনের মধ্যে সত্যিই ভালো ভারসাম্য রয়েছে”। এটা[18] খুবই বৈচিত্র্যময়  ও শ্রদ্ধাপূর্ণ। লোকজন বিভিন্ন ধরণের সংস্কৃতি ও ধর্মকে গ্রহণ করছে”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *